হঠাৎ আলোচনায় আসাদুজ্জামান খান কামাল

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে সফল তিনি। একজন মার্জিত রুচিশীল ভদ্রলোক হিসেবেও সকলের কাছে সমাদৃত হয়েছেন তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে বিরল কৃতিত্ব অর্জন করেছেন কোনো বিতর্কের জন্ম না দিয়েই। সেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল আওয়ামী লীগের কাউন্সিলকে ঘিরে আলোচনায় এসেছেন।



অবশ্য তাকে নিয়ে আলোচনার সূত্রপাত হয়েছিল ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের সম্মেলনের সময়। সে সময় তিনি ঢাকা মহানগরের নেতৃত্বের জন্য আগ্রহী ছিলেন বলেও তার ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত ঢাকা মহানগরের নেতৃত্ব না পেলেও এবার কেন্দ্রিয় নেতৃত্ব পেতে আগ্রহী তিনি।



এমনটাই জানিয়েছেন আসাদুজ্জামান খানের ঘনিষ্ঠরা। এখন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে তাকে সক্রিয় দেখা যাচ্ছে। কর্মব্যস্ততার পরও দলীয় কার্যালয়ে তিনি উপস্থিত হচ্ছেন। আসাদুজ্জামান খানের ইমেজ ভালো। একজন সৎ রাজনীতিবিদ হিসেবে তিনি ইতিমধ্যেই পরিচিত পেয়েছেন।



সাধারণ মানুষের কাছে তার গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। এ কারণেই তাকে প্রথমবারের মতো কেন্দ্রীয় কমিটিতে ভাবা হচ্ছে। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে যে, আওয়ামী লীগ যদি দল এবং সরকারকে আলাদা করে তাহলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব ছেড়ে কি আসাদুজ্জামান খান কেন্দ্রীয় কমিটিতে আসবেন? আসলে পরে তিনি কোন পদে থাকবেন?



সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, আসাদুজ্জামান খান কামাল আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য হতে পারেন। ঢাকার রাজনীতি দেখভাল করার আগ্রহ রয়েছে তারা। এজন্যই প্রেসিডিয়াম সদস্য হলে তিনি রাজনীতিতে সক্রিয় হতে পারেন।



তবে শেষ পর্যন্ত আসাদুজ্জামান খান কামাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থাকবেন নাকি কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে সক্রিয় হবেন সেটা বোঝা যাবে আগামী ২০ এবং ২১ ডিসেম্বর দলের কাউন্সিলে।সূত্র:বাংলা ইনসাইডার