স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সকালে করুন এই ১০টি কাজ

সবাই একদম কাকডাকা সকালে ঘুম থেকে উঠতে পারেন না বটে। সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠা অনেক দিক দিয়েই উপকারী। এ সময়ে যেমন মন দিয়ে পড়াশোনা করা যায়, তেমনি কর্মক্ষেত্রের বা ব্যবসার কঠিন কাজগুলোও সহজে করে ফেলা যায়। এ ছাড়া সকাল সকাল এমন কিছু কাজ করা যায় যাতে স্বাস্থ্য ভালো থাকে, রোগবালাই থাকে দূরে। সকাল ১০টার আগে এমন ১০টি স্বাস্থ্যকর কাজের অভ্যাস গড়ে তুলুন-

১) ধ্যান করুন

ধ্যান মানে কিন্তু লম্বা সময় ধরে কঠিন কোনো কাজ নয়। বরং মন ও শরীর এক সুতোয় গেঁথে নিতে এই প্রক্রিয়াটি কাজ করে। সকালে ঘুম থেকে উঠেই মোবাইল ফোন চেক করা বা রান্নাঘরে ছোটার বদলে একটু সময় নিন। আরাম করে বসে গভীর নিশ্বাস নিন। ভালো চিন্তা করুন ও খারাপ চিন্তা বিসর্জন দিন।

২) মোবাইল ফোন থেকে দূরে থাকুন

যতক্ষণ পর্যন্ত মোবাইল ফোন ছাড়া থাকাই যাচ্ছে না, ততক্ষণ পর্যন্ত তা হাতেও নেবেন না। সকালবেলাটা নিজের জন্য কাটান, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের জন্য নয়। মোবাইল নিয়ে বসলে আপনি নিজের জন্য কোনো সময়ই পাবেন না। তাই এ থেকে দূরে থাকুন যতটা সম্ভব।

৩) গোসল করুন

অনেকেই রাত্রে গোসল করতে পছন্দ করেন। কিন্তু সকালে গোসল করাটা আসলে স্বাস্থ্যের জন্য বেশি উপকারী। এ ছাড়া তা সহজে ঘুম দূর করে ও কাজের উদ্যম বাড়ায়।

৪) ভালো কিছু পড়ুন

আপনার মন ভালো করে দেয়, দুশ্চিন্তা ও উদ্বেগ দূরে রাখে, এমন কোনো বই পড়ুন। এ ছাড়া পড়তে পারেন ব্যবসা বা কর্মক্ষেত্রে উন্নতি করার উপায় সংবলিত কোনো বই। তা সারাদিনই আপনার কাজে আসবে।

৫) একা থাকবেন না

এমন মানুষের সাথে কিছু সময় কাটান যে আপনাকে সাপোর্ট দেয়, আপনার মন-মেজাজ ভালো রাখে। এ সময়টা দিতে পারেন পরিবার, বন্ধু, সঙ্গী বা সন্তানকে। এতে আপনার স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। আপনি যদি একা থাকেন, তাহলে প্রিয় মানুষটিক টেক্সট বা মেইল পাঠানোটাও উপকারে আসে।

৬) ইতিবাচক চিন্তা করুন

সারা দিনে কী করবেন, এ নিয়ে যদি আপনার মনে দুশ্চিন্তা থাকে, তাহলে তা দূর করতে অন্য কেউ নয়, আপনি নিজেই পারেন। নিজেকে আশ্বাস দিন, অভয় দিন। নেতিবাচকের বদলে ইতিবাচক চিন্তা করুন। যেসব ভালো ঘটনা আপনার জীবনে ঘটছে, সেগুলো ভাবুন। এতে আপনার শরীরে স্ট্রেস হরমোন কর্টিসলের মাত্রা কমে আসবে।

৭) ব্যায়াম করুন

সকালে ঘুম থেকে উঠতে পারছেন না? ক্লান্তি লাগছে? চট করে কিছু ব্যায়াম করে ফেলুন। অসাধারণ উপকারিতা পাবেন। তা আপনার ঘুম ঘুম ভাব পুরোটাই দূর করে দেবে। মানসিক ও শারীরিক দুদিক থেকেই আপনাকে উদ্যম দেবে।

৮) ১০টার দিকে নাস্তা করুন

ঘুম থেকে উঠে সাথে সাথেই নাস্তা করবেন না। আপনি যদি রাত্রে দেরি করে খাবার খেয়ে থাকেন, তাহলে সকাল ১০টা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর খাবার খান। এই খাবারটা হতে হবে স্বাস্থ্যকর।

৯) পানি পান করুন

সকালে যতই তাড়াহুড়োর মাঝে থাকুন না কেন, পানি পান করতে ভুলবেন না। ঘুম থেকে উঠেই অন্তত দুই কাপ পানি পান করুন। আর সারা দিনে দুই লিটার পানি পান করার চেষ্টা করুন। মিষ্টি পানীয় ও ডায়েট ড্রিঙ্ক এড়িয়ে চলুন।

১০) গুছিয়ে রাখুন

আপনি যে জায়গাটিতে কাজ করেন ও দিনের বেশিরভাগ সময় কাটান অর্থাৎ আপনার কাজ বা পড়াশোনার ডেস্ক, এ জায়গাটি গুছিয়ে রাখুন। তাতে বিরক্তি, স্ট্রেস ও দুশ্চিন্তা কম থাকবে। কিন্তু সকাল সকাল পরিষ্কার ডেস্কে কাজ শুরু করলে আপনার সারাটি দিনই ভালো থাকবে।