সিমন্স ঝড়ে ভারতকে উড়িয়ে দিল উইন্ডিজ

ওপেনার লেন্ডল সিমন্স ঝড়ে ভারতকে উড়িয়ে দিয়ে সিরিজে সমতায় ফিরল সফরকারী উইন্ডিজ। সিমন্সের অপরাজিত ৪৫ বলে ৬৭ রানের ইনিংসে ৮ উইকেটের সহজ জয় তুলে নিল ক্যারিবীয়রা। ফলে সিরিজে এখন ১-১ এ সমতা বিরাজ করছে।



১৭১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ওপেনিং জুটিতেই ৭৩ রান তুলেন লেন্ডল সিমন্স ও ইভান লুইস। অবশ্য তাদের এই জুটির পেছনে ভারতীয় ফিল্ডারদের বড় ভূমিকা রয়েছে। ইনিংসের শুরুতে নতুন জীবন পেয়েছেন সিমন্স ও লুইস দুজনেই।



লুইস ৪০ রান করে ফিরে গেলে উইকেটে এসে ১৪ বলে ২৩ রানের ক্যামিও খেলে ফিরে যান শিমরন হেটমায়ার। এরই মধ্যে নিজের অর্ধশতক তুলে নেন লেন্ডল সিমন্স। হেটমায়ার ফিরে গেলে উইকেটে এসে ভারতীয় বোলারদের উপর বুলডজার চালান নিকোলাস পুরান।



চারটি চার ও দুই ছক্কায় ১৮ বলে ৩৮ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। অন্যদিকে লেন্ডল সিমন্স চারটি চার ও চার ছক্কায় ৪৫ বলে ৬৭ রানে অপরাজিত থাকেন। তাদের ব্যাটে ভর করে শেষ পর্যন্ত ৯ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় উইন্ডিজ।



এর আগে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে রোহিত ১৫ ও রাহুল ১১ রান করে ফিরে গেলেও শিভাম দুবের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহের দিকে আগাতে থাকে ভারত। ৩ চার ও ৪ ছক্কায় মাত্র ৩০ বলে ৫৪ রান করে ফিরে যান তিনি।



ওয়ালশের বলে দুবে ফিরে যাওয়ার পরেই ভারতের রানের চাকা আটকে ধরে উইন্ডিজ। একসময় মনে হচ্ছিল ১৮০ ছাড়াবে ভারতীয়দের স্কোর সেখান থেকে কেসরিক উইলিয়ামস ও শেলডন কটরেলের নিয়ন্ত্রিত বোলিং ভারতের স্কোরটা বেশি বড় হতে দেয়নি। তবে শেষদিকে ঋষভ পান্থের অপরাজিত ২২ বলে ৩৩ রানে শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৭০ রান করে ভারত।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত- ১৭০/৭(২০), দুবে- ৫৪(৩০), পান্থ- ৩৩(২২)।
উইলিয়ামস- ২/৩০, কটরেল- ১/২৭

উইন্ডিজ- ১৭২/২ (১৮.৩) সিমন্স- ৬৭(৪৫), লুইস- ৪০(৩৫), পুরান- ৩৮(১৮)।