রোনালদো ভক্তদের চাপ নিতে পারল না ম্যানইউর ওয়েবসাইট

পর্তুগিজ সেনসেশন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলার। রোনালদো যেখানেই যান বা যে ক্লাবের হয়েই খেলুন না কেন, শুধু সেই ক্লাব কিংবা মাঠে নয় বরং মাঠের বাইরেও তার গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব রয়েছে।

তাই শুক্রবার (২৭ আগস্ট) রোনালদোর জুভেন্টাস থেকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেওয়ার খবর যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ গণমাধ্যমেও প্রভাব বিস্তার করবে তা জানা কথা।

আর সেই প্রভাব এতোটাই যে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটই ক্রাশ হয়ে গেছে শুধুমাত্র রেড ডেভিল ভক্তদের কারণে। তবে ভক্তদেরই বা দোষ কোথায়? রোনালদো সত্যিই নতুন ক্লাবে যোগ দিয়েছেন কি-না সেই সত্যতা জানার জন্যই বিশ্বের কোটি কোটি ভক্ত ভিজিট করেছিল ম্যানচেস্টারের ওয়েবসাইটটি।

শুধু ওয়েবসাইট ক্রাশ নয়, ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে রোনালদোর স্থান নিশ্চিত হওয়ার পর ইউনাইটেডের স্টক বেড়েছে ৮% পর্যন্ত আর আর্থিক জগতেও এর ফলে “শক ওয়েভ” অনুভূত হতে পারে। ইতোমধ্যে ইংলিশ ক্লাবটি স্টক মার্কেটে ২৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মার্কেট ক্যাপিটালও যোগ করেছে।

তবে এ ধরনের ঘটনা রোনালদোর জন্য নতুন কিছু নয়। রোনালদোর প্রভাব উয়েফা ইউরো ২০২০ চলাকালে কোকাকোলা ভালোভাবেই অনুভব করেছিল। যখন সংবাদ সম্মেলনে পর্তুগিজ অধিনায়ক কোকাকোলার বোতল সরিয়ে রেখে শেয়ার বাজারে পতন ঘটিয়ে দিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটির।

তাই রোনালদোর ইউনাইটেড জার্সি যে আগামী দিনে “হট কেক”-এর মতো বিক্রি হবে তা জানতে জ্যোতিষী হওয়ার প্রয়োজন নেই। 

এদিকে রোনালদোর পদত্যাগের ঘোষণার দুই ঘন্টার মধ্যেই ইউনাইটেডের ইনস্টাগ্রাম ফলোয়ার ৪৩.১ মিলিয়ন তগেকে বেড়ে ৪৪.৩ মিলিয়নে পৌঁছেছে।

২০০৩-২০০৯ সাল পর্যন্ত ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সাথে রোনালদোর প্রথম চুক্তির সময়ে রোনালদো ২৯১ ম্যাচে ১১৮ গোল করেছিলেন।