বেনাপোল রেলপথে আরো ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন আমদানি

বেনাপোল থেকে নিজেস্ব প্রতিনিধি এনামুল হকঃ বেনাপোল বন্দর দিয়ে রেলপথে ভারত থেকে একটি অক্সিজেন বাহী এক্সপ্রেসে ১০ টি কন্টেইনারে আরো ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন আমদানি হয়েছে। রাতেই কাস্টমস আনুষ্ঠানিকতা শেষে অক্সিজেনবাহী রেলটি রওনা দিয়ে আগামীকাল ভোরে পৌছাবে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিমে।

মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) রাত ১০ টা ৩৫ মিনিটে অক্সিজেন বাহি এক্সপ্রেসটি ভারতের জমসেদপুর থেকে বেনাপোল বন্দরে এসে পৌঁছায়। লিনডে বাংলাদেশ নামে একটি প্রতিষ্ঠান এ অক্সিজেনে আমদানি করেছে। এর আগে গত শনিবার প্রথম রেল পথে বেনাপোল বন্দর দিয়ে লিনডে বাংলাদেশ ২০০ মেঃটন অক্সিজেন নিয়ে আসে এক্সপ্রেসটি।

আমদানিকারক লিনডে বাংলাদেশ লিমিটেড কোম্পানির প্রতিনিধি সিএন্ডএফ এজেন্ট সারতী এন্টার প্রাইজের মতিয়ার রহমান জানান, ভারতে করোনা পরিস্থিতির একটু উন্নতি হওয়ায় সে দেশের সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো আবারও বাংলাদেশে অক্সিজেন সরবরাহ শুরু করেছে। তার ধারাবাহিকতা নিয়মিত অক্সিজেন আমদানি হচ্ছে। বন্দর থেকে দ্রুত ছাড় করিয়ে গন্তব্যে পাঠানো হবে।

বেনাপোল কাস্টমস হাউজের অতিরিক্ত কমিশনার ড. নিয়ামুল ইসলাম জানান, বেনাপোল স্থল বন্দর দিয়ে রেল যোগে অক্সিজেন আমদানি করা হচ্ছে। করোনাকালীন
সময়ে অক্সিজেন আমদানি করা হলে তা সর্বোচ্চ অগ্রধিকার দিয়ে দ্রুত খালাস করতে সংশিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বেনাপোল আমদানি -রফতানি সমিতির সহসভাপতি আমিনুল হক জানান, দেশে দিন দিন করোনা আক্রান্ত ভয়াবহ অবস্থা ধারণ করছে। এ মূহুর্তে চিকিৎসা ক্ষাতে অক্সিজেন খুব জরুরী। ভারতে করোনা পরিস্থিতি এখনো স্বাভাবিক হয়নি। ভারতের সাথে বাংলাদেশ সরকারের বাণিজ্যিক সম্পর্ক্যের পাশাপাশি বন্ধুত্ব সম্পর্ক্য ভাল থাকায় এ অবস্থায় অক্সিজেন আমদানি সম্ভব হচ্ছে।স্থলপথে ট্রাক যোগে ও রেলে অক্সিজেন আমদানি হচ্ছে।স্বাভাবিক সময়ে গড়ে প্রতিদিন ৫০ টন অক্সিজেন আমদানি হয়ে থাকলেও বর্তমানে এ অক্সিজেন আমদানির পরিমান বেড়েছে। প্রতিদিন গড়ে ১১০ মেঃটন।

বেনাপোল রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর উপপরিদর্শক এনামুল হক জানান, বেনাপোল রেল ষ্টেশন থেকে রেলওয়ে নিরাপত্তা কর্মীরা অক্সিজেনবাহী কার্গোরেলটি নিরাপত্তা দিয়ে গন্তব্যে নিয়ে যাবেন।

বেনাপোল রেলওয়ে ষ্টেশন মাস্টার সাইদুর রহমান জানান, অক্সিজেন আমদানি কারক বাংলাদেশের লিন্ডে বাংলাদেশ। রফতানি কারক ভারতের লিনডে ইন্ডিয়া। বেনাপোল বন্দর ও কাস্টমসের আনুষ্ঠানিকতা শেষে আজ রাতেই অক্সিজেনবাহী কার্গোরেলটি রওনা দিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতুর (পশ্চিম) সদানন্দপুর স্টেশনে ভোর ৫ টা নাগাদ পৌছাবে। পরে এ অক্সিজেন খালাস করে সেখান থেকে পুনরায় ঢাকায় নেওয়া হবে। পরে দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে এ অক্সিজেন সরবরাহ করা হবে।