বিশ্বকাপের পরেই শুরু হচ্ছে বিপিএলের সপ্তম আসর

বিশ্বকাপের পরপরই বাংলাদেশকে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলার আমন্ত্রণ জানিয়েছে শ্রীলঙ্কা। ডিসেম্বরে বাংলাদেশ দল শ্রীলঙ্কা সফরের কথা থাকলেও সেই সফরটিই জুলাইয়ের মাঝামাঝি বা শেষদিকে করা যায় কি না- এমন প্রস্তাব রেখেছিল এসএলসি।

বিসিবি সেই প্রস্তাবে সম্মতি দেওয়ার ব্যাপারে ইঙ্গিত মিলেছে ক্রিকেট অঙ্গনে। তবে সেক্ষেত্রে আরও একটি ব্যাপার মাথায় রেখেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। আগামী ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) সপ্তম আসর মাঠে গড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কা সফর এগিয়ে আনা হলে বিপিএল আয়োজন করা যাবে নির্বিঘ্নে।

বোর্ডের পরিকল্পনা সম্পর্কে সংবাদমাধ্যমকে অবহিত করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বুধবার (৮ মে) বলেন, ‘এফটিপি হয়ত একটু এদিকসেদিক হতে পারে। হয়ত তারিখ আগেও আসতে পারে পেছনেও যেতে পারে। তবে আমরা প্ল্যান করছি ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে বিপিএল করার জন্য।’

তিনি বলেন, ‘যেহেতু বিপিএল ডিসেম্বরে, সেজন্য হয়ত শ্রীলঙ্কা সিরিজের শিডিউলে পরিবর্তন আনা হতে পারে।’ যদিও এক্ষেত্রে শ্রীলঙ্কা সফর কিংবা সিরিজ ‘এগিয়ে আনা’র মত শব্দ ব্যবহার করেননি বোর্ডের এই দায়িত্বশীল কর্তা।

শ্রীলঙ্কা বাংলাদেশকে বিশ্বকাপের পরই সফরের আমন্ত্রণ জানানোর অন্যতম প্রধান কারণ নিজেদের দেশকে নিরাপদ প্রমাণ করা। ইস্টার সানডেতে ভয়ানক জঙ্গি হামলার পর শ্রীলঙ্কায় নিরাপত্তা শঙ্কা রয়েছে। সেই শঙ্কা দূর করতেই এসএলসির ‘ডাক’, যে ডাকে সাড়া দিচ্ছে বাংলাদেশও। কিন্তু নিরাপত্তা ইস্যুটি সামনে আসছে ঘুরেফিরেই।

তবে নিরাপত্তা নিয়ে কোনো আপোষ করা হবে না জানিয়ে জালাল ইউনুস বলেন, ‘কোনো সন্দেহ নেই- নিরাপত্তা সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পাবে। আগে একটা নিরাপত্তা দল যাবে, তারা দেখবে কেমন নিরাপত্তা আছে। যদিও আমরা সন্তুষ্ট হই… কোনো ধরনের কোনো ঝুঁকি থাকলে অবশ্যই আমরা সেই ঝুঁকি নেব না। কারণ আমাদের খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা এবং প্রাধান্য সবার আগে।’