ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়াতে সরকারকে এরশাদের আহ্বান

রাজধানীর গুলশান-১ এর ঢাকা উত্তর সিটি করর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মার্কেটে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়াতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

পাশাপাশি সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি।শনিবার সকালে এরশাদের ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি খন্দকার দেলোয়ার জালালীর পাঠানো এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানান তিনি

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করে বিরোধীদলীয় নেতা এরশাদ বলেন, ২০১৭ সালের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে গুলশান-১ ডিএনসিসি মার্কেটের ব্যবসায়ীরা সর্বস্ব হারান। কোনো সহায়তা ছাড়াই ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীরা আবারও ঋণ করে ব্যবসা শুরু করেছিলেন।

কিন্তু শনিবার ভোররাতের আগুনে ওই ব্যবসায়ীরা আবারও মারাত্মক ক্ষতির শিকার হলো। সহায়তার হাত বাড়িয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়াতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

পাশাপাশি রাজধানীর আবাসিক ও বাণিজ্যিক ভবনগুলোতে অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান।

এ ঘটনা তদন্তে দায়ী অথবা কর্তব্যে অবহেলার প্রমাণ পেলে, দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবিও জানান হুসেইন ‍মুহম্মদ এরশাদ।

এছাড়া বিবৃতিতে দুঃখ ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিরোধী দলীয় উপনেতা ও জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারমন বেগম রওশন এরশাদ, বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব মো. মসিউর রহমান রাঙ্গা।

প্রসঙ্গত শনিবার ভোর ৫টা ৫৫ মিনিটে ওই ডিএনসিসি মার্কেটে আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ২০টি ইউনিট ও নৌবাহিনীর দুটি ইউনিট যুক্ত হয়ে প্রায় আড়াই ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে সকাল ৮টা ২৫ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এতে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

সিটি করর্পোরেশনের ওই মার্কেটের প্রায় ১৮৮টি দোকান রয়েছে। সবগুলোই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের।

এর আগে গত বছরের ২ জানুয়ারি রাত ২টার দিকে রাজধানীর গুলশান ১ নম্বরে ডিএনসিসি মার্কেটে আগুন লাগে। ভয়াবহ ওই অগ্নিকাণ্ডে মার্কেটের প্রায় ৬০০ দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়।