ওবায়দুল কাদেরের ফেরার অপেক্ষায় বাংলাদেশ

সিঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এখন অনেকটাই সুস্থ। পরিববার পরিজন ও শুভাকাঙ্খিদের সাথে কথা বলতে পারছেন।

শুক্রবার (৫ এপ্রিল) ছাড়পত্র দেবে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল। সেখান থেকে তাকে একটি ভাড়া বাসায় নেওয়া হবে। ওই বাসায় এক মাস থেকে চিকিত্সা নেবেন কাদের।

উল্লেখ্য, গত ৩ মার্চ বিএসএমএমইউতে ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। উন্নত চিকিত্সার জন্য পর দিনই তাকে সিঙ্গাপুর নেওয়া হয়। গত ২০ মার্চ মন্ত্রীর বাইপাস সার্জারি সম্পন্ন হয়।

এদিকে, শুক্রবার বাসায় ফিরছেন নেতা। এমন কথা শুনার পর থেকেই দলীয় নেতাকর্মী ও শুভাকাঙ্খিদের মাঝে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। তাদের এখন একটাই প্রশ্ন, কখন নেতা ফিরবেন স্বদেশের বুকে দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে? যিনি (ওবায়দুল কাদের) রাজনীতির মাঠ চষে বেড়াতেন এবং দলীয় নেতাকর্মীদের খোঁজ খবর নিতেন স্বপ্রণোদিত হয়ে, কাউকে বলে দিতে হত না। অথচ নেতা আজ চিকিৎসার জন্য সুদূর সিঙ্গাপুর। চাইলেই দেখা পাওয়া যাচ্ছে না কাদের ভাইকে। কবে আসবে দলের অন্যতম প্রাণভ্রমরা। অপেক্ষার প্রহর গুনছে দলর শীর্ষ পর্যায় থেকে তৃণমূল। কবে আসবে নেতা। আগের মত খোঁজ খবর নিতে পারবে আমাদের? বলবে কোথায় তোমরা আমি তোমাদের এলাকায়। কাদের ভাই অপেক্ষায় আওয়ামী লীগের নেতারা। অপেক্ষায় বাংলাদেশ।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা আবু নাসের বলেন, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা বর্তমানে অনেক ভালো। তিনি এখন কেবিনে চিকিত্সা নিচ্ছেন। শুক্রবার ভাড়া বাসায় থেকে চিকিত্সা নেবেন। তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদের চিকিত্সক ও তার আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে স্বাভাবিকভাবে কথা বলতে পারছেন।